সাইফুল ইসলাম রিশাত কিভাবে সফল হলেন?

 

সাইফুল ইসলাম রিশাত

'মোঃ সাইফুল ইসলাম রিশাত' একজন বাংলাদেশী নাগরিক। তার জন্মস্থান বাংলাদেশেই। তিনি ছোটবেলা থেকেই বরিশালের মঠবাড়িয়া গ্রামে বেড়ে ওঠেন এবং সেখানেই লেখাপড়া করেন। সেখানে তিনি তার মা বাবা ভাই বোনদের নিয়ে বসবাস করেন। তিনি বরিশালের মঠবাড়ীয়া তে মা-বাবাসহ দুই ভাইকে নিয়ে বসবাস করেন।


সাইফুল ইসলাম রিশাত জন্মগ্রহণ করেন ২০০২-০১-১৮ ইং তারিখে। তিনি তার মা-বাবার মেজ সন্তান। তিনি বর্তমানে "সাফা ডিগ্রী কলেজে পড়াশোনা করছেন। তিনি মাধ্যমিক পাস করেছেন "Mathbaria KM Latif Institution" থেকে। তার প্রাথমিক বিদ্যালয় ছিল তাদের নিজস্ব গ্রামেই। তিনি ছোটবেলা থেকেই লেখাপড়ায় খুবই ভাল ছিলেন। 


আমরা তাঁর কাছে তাঁর জীবনী সম্পর্কে জানতে চাইলে আমাদেরকে জানান, তিনি অনলাইন সম্পর্কে বুঝতে শুরু করেন ২০১৫ সাল থেকে। যদিও তখন টেকনোলজি এত আপডেট ছিল না যার জন্য তিনি চাইলেও কিছু করতে পারেননি। তিনি সময় পেলেই টেকনোলজি নিয়ে বই পড়তেন ইন্টারনেটে ঘাটাঘাটি করতেন। তিনি আমাদের জানান তখন যে সময়ে ছিল সে সময় ল্যাপটপ কম্পিউটার এর প্রচলন এত ছিল না। আর বিশেষ করে ল্যাপটপ কম্পিউটার চালানো তার পক্ষে অনেকটা কঠিন ছিল তখনকার সময়ে। 


২০১৫ সালে তেমন কিছু করতে না পারলেও ২০১৬ থেকে তিনি একজন সফল অনলাইন মার্কেটার। ২০১৬ এর মাঝের দিকে তিনি ব্লগিং নিয়ে কাজ শুরু করেন। তখন গাইড দেয়ার মত মানুষের অনেক অভাব ছিল। তিনি সারাদিন ইন্টারনেট ঘেটে ঘেটে বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করে তার উপর কাজ করতেন। এখন তিনি ব্লগিং শুরু করে নিজেকে সেখানে সফল প্রমাণিত করেন। পাশাপাশি তার মাথায় ঢুকে ওয়েবসাইট তৈরির চিন্তাভাবনা। 


কিভাবে ওয়েবসাইট তৈরি করে? কিভাবে ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম করে? ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য কি কি প্রয়োজন? এই সকল প্রশ্ন ধারা তার মাথায় সর্বক্ষণ ঘোরাফেরা করতো। তিনি শুরু করে দেন ওয়েবসাইট তৈরি করার কার্যক্রম। যদিও তখনকার সময়ে ইন্টারনেটে সার্চ করলেই সব কিছু পাওয়া যেত না। তার পরেও ইন্টারনেটে সার্চ করে করে বিভিন্ন তথ্য পেয়ে তার ভিত্তিতে প্রথম ওয়েবসাইট তৈরি করেন "Blogger.com" গুগলের ফ্রী প্লাটফর্ম থেকে। 


এভাবে তিনি তার কার্যক্রম চালাতে থাকে। একপর্যায়ে অনলাইনের মাধ্যমে একটা কোর্স করে তিনি এখন সফল ডেভলপার এবং ওয়েব ডিজাইনার। এভাবে তার জীবন চলতে থাকে। তিনি খুব অল্প সময় খুব অল্প বয়সে সফলতার দেখা পাই। তিনি অনলাইন থেকে প্রত্যেক মাসে মোটামুটি বড় অংকের টাকা উপার্জন করতে সক্ষম হয়েছে বলে আমাদের জানান। তিনি আমাদের জানান তার অনলাইন জীবনের গল্প টি ছিল অনেক বেশি বড় যা বলে বোঝানো অনেকটা কঠিন হয়ে পড়ে।


সাইফুল ইসলাম রিশাত


তিনি আমাদের জানান, তার বাল্য জীবনের বন্ধু বান্ধবী খুবই কম ছিল। যারা ছিলেন তারাও অনলাইনের বন্ধুবান্ধব। তার বাস্তব জীবনে চলার পথে বন্ধু বান্ধব খুব কম ছিল। কারণ বাস্তব জীবনে তিনি ঘোরাফেরা করা আড্ডা দেয়া এগুলো করে সময় নষ্ট করেন নি। উদ্দেশ্য ছিল কিভাবে অনলাইনে ইনকাম করা যায়! কিভাবে অনলাইনে সফল হওয়া যায়! কিভাবে অনলাইনের মাধ্যমে মানুষকে কিছু শেখানো যায় এই গুলো।


২০২০ সালে এসে তার মাথায় ঢুকে মানুষের মাঝে প্রত্যেকদিনের সত্য ঘটনা গুলো পৌছে দেয়ার চিন্তা ধারা। এইতো কিছুদিন আগের ঘটনা এটা। ২০২০ সালে সকল বিষয়বস্তু উপর গবেষণা করে তিনি শুরু করেন তার স্বপ্নের অনলাইন পোর্টাল এর যাত্রা। যদিও এটা সামাজিকভাবে উৎপাদন করা হয় ২০২১-০১-০১ ইং তারিখে। তবে এটা উৎপাদন করার আগেই তিনি নিজের মতো করে নিজেই ডেভলপ করেছেন। তার ডেভলপ কৃত অনেক অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে। যার মধ্যে তার স্বপ্নের অনলাইন পোর্টাল হচ্ছে "Patrika71"।


তিনি বর্তমানে "পত্রিকা একাত্তরের" সম্পাদক এবং প্রশাসক। তিনি আমাদের জানান বর্তমানে তার অনলাইন পোর্টালের সাথে প্রায় ৫০ জনের বেশি মানুষ জড়িত রয়েছেন যারা প্রত্যেকদিন নিউজ সংগ্রহ করেন। তার সাথে রয়েছেন এডিটর, সাব-এডিটর সহ আরো বেশি সংখ্যক লোক, যাদের দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে তার স্বপ্নের অনলাইন পোর্টাল পত্রিকা একাত্তর।


তার স্বপ্নের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি আমাদের জানান! তিনি চাচ্ছেন ভবিষ্যতে এই অনলাইন পোর্টাল কে প্রিন্ট আকারে রূপান্তরিত করার জন্য। তিনি আমাদের বলেন, বর্তমান সময়ের পেক্ষাপটে একটি মানুষ সঠিক ভাবে জীবন যাপন করতে হলে প্রয়োজন টাকার এবং মানুষের ভালোবাসার। যা তিনি অর্জন করতে পেরেছেন। 


তিনি আরো বলেন! আমার বয়সী যারা আছেন তাদের উদ্দেশ্যে বলছি, জীবনে কিছু করতে হলে অবশ্যই অক্লান্ত পরিশ্রম করতে হবে। পরিশ্রম এর মধ্য থেকেই সফলতা আপনার কাছে ধরা দিবে। সফলতা পাওয়া অনেকটা কঠিন। আমি ছিলাম মধ্যবিত্ত পরিবারের সাদা-সিদে একটি ছেলে। ছোটবেলা থেকেই আমার স্বপ্ন আমার ইচ্ছা ছিল অনলাইন কে জানা, বিশ্বকে জানা, বিশ্বকে জেনে তা আবার মানুষের সামনে প্রেজেন্ট করা। আজ আমি তা করতে পেরেছি। আমি পেয়েছি মানুষকে বিশ্ব সম্পর্কে অনেকটা জানাতে। 


আমার বয়সী যে সকল বন্ধুরা রয়েছেন সবাইকে একটা কথাই আমি বলবো, জীবনে কিছু করতে হলে অক্লান্ত পরিশ্রম অবশ্যই করতে হবে। বন্ধুদের সাথে আড্ডা দেওয়া, বিকালের সুন্দর মুহূর্ত টা বিভিন্ন খেলার মাধ্যমে শেষ করে ফেলা, গুরুত্বপূর্ণ সময় টা কোন একটা বাজে কাজে শেষ না করে সেটা কিছু শেখার কাজে ব্যবহার করা উচিত। জীবনে এখন কিছু করতে পারলে সারা জীবন হয়তো তুমি সুখে থাকতে পারবে। এভাবে খুব গুরুত্বপূর্ণ সময় গুলো খেলাধুলার পিছনে শেষ করলে আর তার পিছনে শেষ করলে তোমাকে কয়জন চিনবে? মানুষের সামনে পরিচিত হতে হলে অবশ্যই মানুষের জন্য কিছু করতে হবে।


সাইফুল ইসলাম রিশাত


মানুষের জন্য কিছু করতে হলে তোমাকে জানতে হবে তোমার আশেপাশের মানুষ কি চায়?; তারা তোমার থেকে কি ডিজার্ভ করে? তারা তোমার থেকে কোন গুলো চায়না সেগুলো বর্জন করো। তারা তোমার থেকে যা চাই সেগুলো তাদের সামনে প্রেজেন্ট করো। দেখবে তারাই তোমাকে সফল মানুষ হিসেবে চিনবে, তারাই বলবে তাদের সন্তানকে তোমার মত করে জীবন যাপন করার জন্য তোমার মতো করে শেখার জন্য। 


জীবনে সফল হতে হলে মানুষকে বুঝতে হবে, নিজেকে বুঝতে হবে, গুরুত্বপূর্ণ সময়টাকে বাজে কাজে ব্যবহৃত করা থেকে বিরত থাকতে হবে। সময় কারো জন্য অপেক্ষামান না।

Post a Comment (0)
Previous Post Next Post